Wednesday, May 20, 2020

Full HD Eid Mubarak wishes photo quote background free download 2020

Full HD Eid Mubarak wishes photo quote background free download 2020

Today I will share with you some pictures on the occasion of Holy Eid-ul-Fitr which you can wish your loved ones on the occasion of Eid and if you want you can edit it and put your own quote. I hope you like it.


The image above shows a mosque-shaped dome and a moon that indicates an Islamic image.  It is a religious reflection of Islam.

In this picture you can see a man who is a follower of Islam. He is praying in the court of Allah and according to Islam he is praying in the court of Allah Almighty. Basically this picture indicates this.



The image above is a PNG image.  Which you can use for your various projects.  And with it you can create different special photos of Eid and you can use it for personal and business purposes.


In the picture above you can write various quotes related to Eid as you wish and share them among your favorite people.  It's completely free and you can use it anywhere.




You can see a background image in the picture above. Here you can write different quotes as you wish and make a wish among your loved ones.


Download all image from click here

Tuesday, May 19, 2020

পোর্টেবল এলসিডি ডিজিটাল টিডিএস জলের গুণমান পরীক্ষার পেন কীভাবে ব্যবহার করবেন।

পোর্টেবল এলসিডি ডিজিটাল টিডিএস জলের গুণমান পরীক্ষার পেন কীভাবে ব্যবহার করবেন।

নিত্যদিনের প্রয়োজনে পানি অপরিহার্য। একজন মানুষের পক্ষে পানি ছাড়া একটি দিন পার করা প্রায় অসম্ভব। তাই বলা হয় পানির অপর নাম জীবন। পানি ছাড়া প্রাণীর বাঁচা অসম্ভব আর আমাদের নিত্যদিনের প্রয়োজনে পান করার জন্য পানি অপরিহার্য। তবে তা বিশুদ্ধ কিনা জানা অত্যন্ত জরুরী। পানির অপর নাম জীবন ঠিক তেমনি দূষিত পানি পান করে হতে পারে জীবনের ক্ষতি অথবা জীবননাশ। তাই আমাদেরকে পানি পানের ব্যাপারে আরো সতর্ক হওয়া উচিত। আমরা অনেকেই টিউবওয়েল অথবা ওয়াসার লাইনের পানি পান করে থাকি যা দেখতে স্বচ্ছ হলেও এতে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের দ্রবীভূত পদার্থ যা আমাদের শরীরের জন্য ভীষণ ক্ষতিকর। আজকে আমরা কথা বলবো পানিতে দ্রবীভূত পদার্থ গুলো নিয়ে এবং কিভাবে তা নিনয় করা যেতে পারে এবং এর মান কত?
পানিতে দ্রবীভূত খনিজ পদার্থ যেমন মানব দেহের জন্য উপকারী তেমনি কিছু কিছু খনিজ পদার্থ রয়েছে যা মানবদেহের ব্যাপক ক্ষতিসাধন করতে পারে। তাই এসব খনিজ পদার্থ সম্পর্কে জানতে হবে এবং এসব খনিজ পদার্থ কি পরিমান আমাদের খাবার পানিতে বিদ্যমান আছে তা খেয়াল রাখতে হবে। মূলত এই কাজটা আমরা করতে পারি একটি টিডিএস মিটারের সাহায্যে। টিডিএস মিটার মূলত এক ধরনের মিটার যার মাধ্যমে পানির টিডিএস এর পরিমাণ নির্ধারণ করা হয়। সাধারণত টিডিএস এর মান পিপিএম অর্থাৎ পার্টস পার মিলিগ্রাম হিসাবে ব্যক্ত করা হয়ে থাকে। পানিতে বিদ্যমান এই পিপিএম এর মাত্রা যত বেশি হবে সে পানি তত বেশি দূষিত হবে। বাজারে যে পানি কিনতে পাওয়া যায় এসকল পানির টিডিএস এর পরিমাণ সাধারণত খুব অল্প পরিমাণে থাকে। এসব পানিতে বিদ্যমান টিডিএস এর পরিমান 50 থেকে 80 এর মধ্যে থাকে। কখনো কখনো আমরা লাইনের যে পানি খাই এসব পানিতে টিডিএস এর পরিমান 400 থেকে 500 অথবা এর থেকে বেশি থাকতে পারে যা আমাদের শরীরের জন্য ক্ষতিকারক।

এখন জনি টিডিএস মিটার দিয়ে আমরা কি কি করতে পারি। বর্তমানে বাজারে বিভিন্ন ধরনের টিডিএস মিটার পাওয়া যায় যা দিয়ে আমরা খুব সহজেই পানির টিডিএস নির্ণয় করতে পারি তবে আগে এটা এত সহজলভ্য ছিল না। আগে অনেক এনালগ মিটার ছিল যেগুলো দিয়ে টিভিএস পরিমাপ করা হতো তবে বর্তমানে প্রযুক্তির কল্যাণে অত্যাধুনিক টিডিএস মিটার এর মাধ্যমে পানির টিডিএস পরিমাপ করা যায়। এই টিডিএস মিটার দেখতে অনেকটা পেন টাইপের হয়ে থাকে যা কলমের মতো হেড খুলে পানিতে এর  সেন্সর ডুবালে পানির টিডিএস এর মান দেখা যায়। বর্তমানে যেসব টিডিএস মিটার পাওয়া যায় সেসব টিডিএস মিটার দিয়ে পানির তাপমাত্রা নির্ধারণ করা যায়। 

Tuesday, May 5, 2020

মোবাইলে ফ্রিতে করুন পিডিএফ থেকে ওয়ার্ড এবং ওয়ার্ড থেকে পিডিএফ।

মোবাইলে ফ্রিতে করুন পিডিএফ থেকে ওয়ার্ড এবং ওয়ার্ড থেকে পিডিএফ।

যারা জব সংক্রান্ত কাজে সিভি তৈরি করে থাকি এবং ইমেইলে সিভি পাঠিয়ে থাকি তারা কখনো না কখনো ওয়ার্ড ফাইল এবং পিডিএফ ফাইল নিয়ে বেশ ঝামেলায় পরেছি। আর এই কাজটি খুব সহজ হলেও যারা পারে না তাদের কাছে খুব কঠিন মনে হয় এবং কম্পিউটারের যে সফটওয়্যার গুলো ব্যবহার করা হয় এই কাজে তার বেশির ভাগই প্রিমিয়াম সফটওয়্যার তাই ফ্রিতে এটি করা অনেক কষ্টসাধ্য। তবে হ্যাঁ ফ্রিতে করার উপায়ও আছে। এই ছোট্ট একটা কাজের জন্য কেউ তো টাকা খরচ করতে চায় না আর কেনই বা করবে যদি সেই কাজটা ফ্রিতে হয়ে যায়। 

আমরা অনেকেই আছি যারা পিডিএফ নিয়ে খুব বিপদে পড়ি। অনেক সময় দেখা যায় আমাদের প্রয়োজনে বিভিন্ন ওয়ার্ড ফাইল পিডিএফ এ রূপান্তর করার প্রয়োজন হয়। কিন্তু আমরা অনেকেই জানিনা ফোন দিয়ে কিভাবে করতে হয়। আজকে আমি কথা বলব এমন একটা অ্যাপস নিয়ে যার দ্বারা আপনি খুব সহজে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে পিডিএফ সংক্রান্ত যত সমস্যা সব কিছু সমাধান করতে পারবেন। এই অ্যাপ দিয়ে আপনি পিডিএফ ফাইল তৈরি করা পিডিএফ থেকে ওয়ার্ড ফরমেটে নেওয়া এবং ওয়ার্ড ফরমেট থেকে পিডিএফ ফরমেটে টান্সফার করা সহ নানা ধরনের কাজ করতে পারবেন। আপনি চাইলে পিডিএফ থেকে কোন নির্দিষ্ট পাতা বাদ দিতে পারবেন, নতুন করে পাতা যুক্ত করতে পারবেন এছাড়াও একাধিক পিডিএফ ফাইলকে একটা ফাইলে রুপান্তর করতে পারবেন।

অনেক সময় আমরা মাইক্রোসফ!ট ওয়ার্ডে সিভি তৈরি করে থাকি কিন্তু আমরা পিডিএফ ফাইলে রুপান্তর করতে পারি না। যার ফলে ওয়ার্ড ফরমেটে কাউকে সিভি পাঠালে হয়তোবা কখনো এডিট হয়ে যাওয়া বা কোন ভুল হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে কিন্তু আপনি যখন পিডিএফ ফাইলে রূপান্তর করবেন এবং পিডিএফ ফাইল টি কাউকে পাঠাবেন তখন সে এটি এডিট করতে পারবে না এবং খুব সহজেই প্রিন্ট করতে পারবে। তো চলুন কিভাবে আমরা এটি করতে পারি আলোচনা করি প্রথমে আপনাকে যেটা করতে হবে গুগল প্লে স্টোর থেকে একটা অ্যাপস ডাউনলোড করতে হবে এখানে ক্লিক করে আপনি আপনি ডাউনলোড করতে পারবেন। অ্যাপটি ডাউনলোড করার পরে খুব সহজভাবেই আপনি অ্যাপস টি ওপেন করে বিভিন্ন টুলস এর নাম দেখতে পারবেন সেখানে লেখা থাকবে পিডিএফ টু পিডিএফ এডিট ওয়াড টু পিডিএফ অথবা pdf to word এ ধরনের নানান ফাংশন।

আপনি জাস্ট ক্লিক করে আপনার নির্ধারিত ফাইল আপলোড করে কোন ফরম্যাটে ট্রানস্ফার করতে চান সিলেক্ট করে সহজেই ট্রানস্ফার করতে পারেন। আর হ্যাঁ এর জন্য আপনাকে কোন টাকা খরচ করতে হবে না বা কোন প্রিমিয়াম সফটওয়্যার কিনতে হবে না তবে হ্যাঁ এই অ্যাপসটিতেও প্রিমিয়াম ভার্সন আছে আপনি যদি প্রিমিয়াম ভার্সনে আপগ্রেড করেন তাহলে আপনি এই অ্যাপসের আরো প্রিমিয়াম ফিচার গুলো আছে সেগুলো ব্যবহার করতে পারবেন। আমার কাছে ব্যক্তিগতভাবে মনে হয়েছে প্লে স্টোরে যত অ্যাপস আছে তার ভেতরে এটি খুবই একটি কার্যকরী অ্যাপস আর যারা পিডিএফ সংক্রান্ত ঝামেলা এড়াতে চান তারা কিন্তু খুব সহজেই এই অ্যাপস এর মাধ্যমে যাবতীয় পিডিএফ সংক্রান্ত ঝামেলা এড়াতে পারেন। আশা করি এটি আপনাদের কাজে লাগবে এছাড়াও যদি কোনো অ্যাপস অথবা এই সংক্রান্ত যে কোন সহযোগিতার প্রয়োজন হয় কমেন্টস করে জানাবেন। যারা কম্পিউটারে পিডিএফ সফটওয়্যার ইউজ করতে চান ফ্রিতে তারা অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন পরবর্তীকালে চেষ্টা করব কম্পিউটারে কিভাবে কমপ্লিট পিডিএফ ফাইলের সলিউশন দেওয়া যায়। 

Tuesday, April 28, 2020

অনলাইন মিউজিক স্ট্রিমিং এখন আরো সহজ ইউটিউব মিউজিকে।

অনলাইন মিউজিক স্ট্রিমিং এখন আরো সহজ ইউটিউব মিউজিকে।

গান শুনতে পছন্দ করে না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া দায়। আমরা সবাই কমবেশি গান শুনে থাকি। কেউবা ফোনে কেউবা ইউটিউবে আবার কেউবা বিভিন্ন অনলাইন সাইটে। তবে সম্প্রতি গুগল তাদের নতুন একটি অ্যাপস প্রকাশ করেছে যা ইউটিউব মিউজিক নামে পরিচিত। ইউটিউব মিউজিক মূলত একটি অনলাইন মিউজিক স্ট্রিমিং অ্যাপস। অন্যান্য মিউজিক স্টিমিং সাইট গুলোর মতই এটিও একটি। কিন্তু এর অন্যতম বৈশিষ্ট্য হচ্ছে এটি গুগল তথা ইউটিউব কতৃক প্রকাশিত একটি স্ট্রিমিং সাইট। আর এখানে ইউটিউবের সব বাছাইকৃত গানগুলো আপনি পাবেন। 
youtube music, online streming,


ইউটিউব মিউজিক নামের অ্যাপসটিতে আপনি ইউটিউবের সব গান শুনতে পারবেন। নতুন যুক্ত করা হয়েছে অডিও ফিচার আপনি চাইলে এটি আপনার ফোনের অডিও প্লেয়ার এর মতোই ব্যবহার করতে পারবেন যেখানে থাকবে ইউটিউব এর সব মিউজিক। আপনি চাইলেই নিজের ইচ্ছামত প্লেলিস্ট বানিয়ে ফেলতে পারবেন এখান থেকে। আপনার পছন্দের গানগুলো খুঁজে পাবেন খুব সহজে। বর্তমানে এটি বিশ্বের 77 টি দেশে চালু করা হয়েছে, তবে বাংলাদেশে এখনো এভেলেবেল না। গুগল সম্প্রতি এটিকে পরিক্ষামূলক ভাবে বিভিন্ন দেশে প্রকাশ করেছে যা খুব সাড়া জাগিয়েছে।

অ্যাপসটিতে রয়েছে নিজের ইচ্ছামত গায়ক পছন্দ করে গান শোনার সুবিধা। আপনি চাইলে নিজের পছন্দের গায়কের গানটা শুনতে পারবেন। বানিয়ে নিতে পারবেন নিজের ইচ্ছা মত করে গানের লিস্ট। তবে এর জন্য আপনাকে মাসিকভাবে চার্জ দিতে হবে। অ্যাপসটির প্রিমিয়াম ভার্সনে আপনি চাইলে যেকোন গান ডাউনলোড করতে পারবেন। অ্যাডভার্টাইজমেন্ট ছাড়া গান শুনতে পারবেন। ফোনের স্ক্রিন অফ থাকলেও শুনতে পারবেন গান যা ইউটিউবে যায়না। এছাড়াও রয়েছে অসাধারণ সব ফিচার। বাংলাদেশ থেকে কিছু কিছু ওয়ে ব্যবহার করে অ্যাপটি চালানো যায়। যার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে ভিপিএন ইউজ করে। ভিপিএন কানেক্ট করার মাধ্যমে আপনি ইউটিউব মিউজিক অ্যাপসটি চালাতে পারবেন বাংলাদেশ থেকে। এবং আপনার পছন্দের গানটি শুনতে পারবেন। তবে আশা করছি অ্যাপসটির পরীক্ষামূলক প্রচার শেষ হলে খুব জনপ্রিয়তা লাভ করবে এবং প্রিমিয়াম থেকে ফ্রী ভার্সন করা হতে পারে। 

আপনি চাইলে প্লে স্টোর থেকে ফ্রী ডাউনলোড করতে পারবেন এছাড়াও স্যামসাং গ্যালাক্সি স্টোর অথবা আপেল স্টোরে পাওয়া যাবে এই অ্যাপসটি। তাই যারা মিউজিক পছন্দ করেন আর অনলাইনে মিউজিক শুনতে ভালবাসেন, নতুন নতুন গান গুলো সবার আগে শুনতে চান আশা করি তাদের জন্য খুব কাজে লাগবে অ্যাপসটি। 

Sunday, April 26, 2020

শাওমির ফোল্ডেবল ব্লুটুথ ট্রাইপড সেলফি স্টিক

শাওমির ফোল্ডেবল ব্লুটুথ ট্রাইপড সেলফি স্টিক

আমরা অনেকেই আছি যারা সেলফি তুলতে খুব পছন্দ করি এবং সেলফি স্টিক দিয়ে খুব সুন্দর সুন্দর সেলফি তুলে থাকি। সেলফি স্টিক যাদের সেলফি তোলার জন্য প্রথম পছন্দ তাদের জন্য আজকের এই আর্টিকেল।


আজকে আমি এখানে লেখার চেষ্টা করব শাওমির একটি সেলফি স্টিক নিয়ে যেটি বর্তমানে বাজারে খুব জনপ্রিয়। যে সেলফি স্টিক টা নিয়ে এখন কথা বলছি সেটি আর কোনোটিই নয় এটি শাওমির ফোল্ডেবল ট্রাইপড সেলফি স্টিক। বর্তমানে বাজারে দুটি কালারে পাওয়া যাচ্ছে এই সেলফি স্টিক। কালো এবং অ্যাস কালার। যদিও কালো রঙ আমার কাছে বেশ লেগেছে।

✪ব্যান্ডের নাম শাওমি।
✪রিমোট কন্ট্রোল সাপোর্টেড।
✪বিল্ড ম্যাটেরিয়ালস প্লাস্টিক।
✪ওজন 145 গ্রাম।
✪সর্বোচ্চ দৈর্ঘ্য 400 মিলিমিটার।
✪এতে রয়েছে মাল্টি অ্যাঙ্গেল শুটিং সিস্টেম।
✪থাকছে 90 ডিগ্রী ভার্টিক্যাল শুটিং।
✪মডেল নাম্বার শাওমি ব্লুটুথ সেলফি স্টিক।
✪এতে ব্যবহার করা হয়েছে ব্লুটুথ 3.0 প্রটোকল।

এটি এন্ড্রয়েড সিস্টেম 4.3 থেকে উপরের যতগুলো ভার্সন আছে সবগুলোতেই সাপোর্ট করবে। এবং আইওএস 5.0 থেকে উপরের দিকে সাপোর্ট করবে।

আপনারা চাইলে বাংলাদেশের বিভিন্ন অনলাইন শপ থেকে এটি কিনতে পারেন এছাড়াও বিভিন্ন ইন্টারন্যাশনাল অনলাইন শপিং সাইটগুলোতেও এটি এভেলেবেল আছে। বর্তমানে এটি 1000 থেকে 1500 টাকার মধ্যে কিনতে পারবেন।

শাওমি কোম্পানির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে এটি স্মার্টফোনের জন্য স্পেশাল ভাবে তৈরি করা হয়েছে। এটি আপনি সেলফি স্টিক হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন এটি আপনি ট্রাইপড হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন। এর দ্বারা আপনি এইচডি ফটোগ্রাফি ভিডিও শুটিং করতে পারবেন। তাই যারা সেলফি স্টিক কিনতে চান আমার কাছে মনে হয়েছে এটি একটি বেস্ট সেলফি স্টিক যেটি খুব রিজেনেবল প্রাইস। আপনি চাইলেই খুব সহজে আলি এক্সপ্রেস থেকে এখানে ক্লিক করে দেখে আসতে পারেন।